মানবদেহে জিনের সংখ্যা | X ক্রোমোজোম ও Y ক্রোমোজোম।

জীবের সঙ্গে যৌনতা বিকাশের ক্রোমোজোমগত বিভেদের কিছু সম্পর্ক খুজে পাওয়া যায় ও এর ভিত্তিতে বিজ্ঞানীরা দু-প্রকার ক্রোমোজোম চিহ্নিত করতে সমর্থ হন। 

এদের এক প্রকার ক্রোমোজোমকে বলে অটোজোম (autosome) বা দেহ ক্রোমোজোম ও অপর ধরনের ক্রোমোজোমকে বলা হয় যৌন কোমোজোম বা সেক্স-ক্রোমোজোম (sex-chromosome)। সেক্স ক্রোমোজোমকে অ্যালোজোমও (allosome) বলে। 

যৌন জননকারী প্রাণী ও উদ্ভিদে দেখা যায় সেক্স-ক্রোমোজোম ও অটোজোমের বংশানুক্রমিক সঞ্চারণ প্রকৃতি পৃথক ধরনের। এই কারণে সেক্স-ক্রোমোজোমের ওপর অবস্থিত জন ও আটাজোমের উপর অবস্থিত জিনের উত্তরাধিকার ভিন্ন প্রকৃতির।

'X'-ক্রোমোজোমে অবস্থিত জিনগুলিকে সেক্স লিংকড জিন (Sex-linked gene) বলে। অটোজোম বাহিত জিনকে অটোজোমাল জিন (Autosomal gene) বলে।

'Y'-ক্রোমোজোমে অবস্থিত জিনকে হলান্ড্রিক জিন (Holandric gene) বলে। সেক্স ক্রোমোজোমের উপর অবস্থিত জিনই সেক্স-লিংকেজের অন্তর্ভুক্ত ও কেমনভাবে এমন জিন বংশপরম্পরায় সঞ্চারিত হয় তাই সেক্স-লিংকেজজনিত উত্তরাধিকারের প্রতিপাদ্য বিষয়। 

সংজ্ঞা (Definition) - যে প্রক্রিয়ায় যৌন ক্রোমোজোমে (X) অবস্থিত জিনগুলি নির্দিষ্ট নিয়মে বংশপরম্পরায় এক জনু থেকে অপর জনুতে সঞ্চারিত হয় তাকে সেক্স-লিংকড উত্তরাধিকার বা লিঙ্গ সংযোজিত উত্তরাধিকার বলে।

ক্রোমোজোম চিত্র। মানবদেহে জিনের সংখ্যা | X ক্রোমোজোম ও Y ক্রোমোজোম।

X ক্রোমোজোম ও Y ক্রোমোজোম।

যৌন-লিংকেজের প্রকারভেদ (Types of sex-linkage)- যেহেতু ক্রোমোজোমগত যৌন বিভেদের ক্ষেত্রে দু-রকমের সেক্স-ক্রোমোজোম দেখা যায়, সেই কারণে যৌন-লিংকেজকে দুটি শ্রেণিভুক্ত করা যায়, যেমন X-লিংকেজ ও Y-লিংকেজ।

X-লিংকেজ (X-linkage)- X-ক্রোমোজোমের উপর অবস্থিত জিনগুলি X-লিংকেজের সময় দেখা যায়, স্ত্রী অপত্য তার দুটি X-ক্রোমোজোমের একটি পায় মায়ের কাছ থেকে ও অপরটি পায় বাবার কাছ থেকে। আবার পুরুষ অপত্য তার X-ক্রোমোজোমটি পায় মায়ের কাছ থেকে। বাবার কাছ থেকে পুরুষ অপত্য পায় কেবল Y-ক্রোমোজোম।

একটি বিষয় লক্ষণীয় যে পুত্র হওয়ার জন্য (XY) X ক্রোমোজোম সর্বদাই মায়ের থেকে এবং Y ক্রোমোজোম পিতার থেকে আসে। পিতাই সন্তানের ক্ষেত্রে Y ক্রোমোজোম প্রদান করায় সন্তানটি পুত্র হয়। এই কারণে বলা যায় পুত্র সন্তান সৃষ্টির ক্ষেত্রে পিতার ভূমিকা আছে কিন্তু মায়ের কোনো ভূমিকা নেই। মা পুত্র বা কন্যা সন্তান উভয় ক্ষেত্রেই শুধু X ক্রোমোজোম প্রদান করে।

যৌন ক্রোমোজোমের এমন সঞরণ থেকে বোঝা যায় পুরুষের কোনো X-ক্রোমোজোমস্থিত জিন (তথা চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য) কেবল তার স্ত্রী-অপত্য বা কন্যার মধ্যে সঞ্চারিত হয়। পরবর্তী জনুতে স্ত্রী-অপত্য বা কন্যার ওই জিনটি তার পুত্রের মধ্যে সঞ্চারিত করতে পারে। মাতামহের কোনো চরিত্র F, জনুর স্ত্রী-অপত্যের মাধ্যমে F2 জনুর পৌত্রের মধ্যে সঞ্চারণকে বলে ক্রিস-ক্রস উত্তরাধিকার (criss-cross inheritance)। 

Y-লিংকেজ (Y-linkage)- Y-ক্রোমোজোমের ওপর অবস্থিত জিন Y লিংকেজের অন্তর্ভুক্ত। লিঙ্গ বিভেদের নীতি অনুযায়ী কোনো পুরুষ তার Y-ক্রোমোজোম পুরুষ সন্তানদের মধ্যে সঞ্চারিত করতে পারে, কিন্তু কোনো স্ত্রী সন্তানের মধ্যে সঞ্চারিত করতে পারে না। এই কারণে Y-ক্রোমোজোমের ওপর অবস্থিত জিন তথা চরিত্র কেবল পুরুষ থেকে পুরুষে সঞ্চারিত হয়। যেসব জিন এমনভাবে শুধু পুরুষানুক্রমে সঞারণ দেখায় তাদের বলে হোলান্ড্রিক জিন (Holandric gene)।

আরও পড়ুন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন