ড্রাগস এর নেশা ছাড়ানোর উপায়।

ড্রাগ আসক্ত লোকের ড্রাগ বন্ধ করলে যা হয়- যেসব লোকের মাদক দ্রব্যে আসক্তি আছে তাদের ড্রাগ বন্ধ করলে ছয় থেকে আট ঘণ্টার মধ্যে কিছু অস্বস্তিকর লক্ষণ দেখা দেয়। 

ড্রাগ বন্ধ হওয়ার পর প্রায় 10 দিন মতো লক্ষণগুলি জেগে থাকে। ড্রাগের প্রকৃতি ও তার মাত্রার ওপর নির্ভর করে লক্ষণ ও পরিবর্তন হয়।

তবে সাধারণভাবে কিছু লক্ষণ যেমন দেখা যায়, তা হল - (1) শীত শীত ভাব। (2) অস্বস্তি ও হাই ওঠা। (3) দ্রুত শ্বাসক্রিয়া ও শ্বাসকষ্ট। (4) চোখ দিয়ে জল পড়া। (5) কাপুনি ও তারাররে বৃদ্ধি। (6) ক্ষুধামান্দ্যভাব। (7) অনেক সময় অত্যধিক ঘুম দেখা দেওয়া। (8) হাত-পায়ে খিল ধরা। (9) জ্বর। (10) রক্তচাপ বৃদ্ধি।

ড্রাগস এর নেশা ছাড়ানোর উপায়।

ড্রাগস এর নেশা ছাড়ানোর চিকিৎসা।

মাদকাসক্ত মানুষের চিকিৎসা করলে সে ড্রাগের ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে বাঁচতে পারে। খুব সহানুভূতির সঙ্গে ড্রাগে আসক্ত মানুষের চিকিৎসা করতে হয়।

ড্রাগস এর নেশা ছাড়ানোর আচরণভিত্তিক চিকিৎসা। 

প্রথমে আসক্ত মানুষটিকে তার ড্রাগ নেওয়া বন্ধুবান্ধব থেকে আলাদা করতে হয়। লক্ষ রাখতে হয় যেন কোনোমতে ওই লোকের কাছে মাদক দ্রব্যটি না পৌঁছোয়। তারপর তার মানসিক চিকিৎসার দরকার হয়। 

বিশেষ কোনো কাজে নিয়োগ করতে হয় যাতে তার ড্রাগের কথা মনে না পড়ে। স্বাস্থ্য ফেরানোর জন্য মানুষটিকে ভালো খাবারদাবার দিতে হয়। শরীরে কোনো অসুবিধা থাকলে তা নিরাময়ের ব্যবস্থা করতে হয়। 

যে ড্রাগের প্রতি আসক্তি জন্মে সেটি একেবারে বন্ধ না করে তার মাত্রা কমিয়ে কমিয়ে কিছুদিন লোকটিকে দেওয়া হয়। এতে ড্রাগ বন্ধ করার খারাপ ফলের প্রকোপ অনেকটা কম থাকে। 

ঘুম ঠিকমতো না হলে বা বেশি উদবেগ দেখা গেলে স্নায়ু শিথিলকারক ওষুধ ও ঘুমের ওষুধ দিলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন। 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন